ওজন কমান ৭০% বেশি

ওজন কমানোর জন্য আমরা অনেকেই বিভিন্ন ডায়েট প্লান অনুসরন করি। নিয়মিত ডায়েট প্লান অনুসরন করলে ও হাল্কা ফ্রী হ্যান্ড এক্সারসাইজ করলে আমাদের ওজন কমে আসে এটা আমরা সবাই এখন কম বেশি জানি। কিন্তু এই ওজন কমানোর হার ৭০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়িয়ে দেয়া যায় ছোট একটি ব্যাবস্থা নিলে।

বছরের পর বছর ধরে বিজ্ঞানি গন গবেষণা করে যাচ্ছেন কোন একটি উপাদান খুজে পাবার জন্য যা আমাদের ওজন কমানোতে সাহায্য কবে। ২০০৮ সালে আমেরিকার মিনিসোটা বিশ্ববিদ্যালয় এর ডঃ সালেমার শিবলি ৩৮ জন স্থুল মানুষ কে নিয়ে একটি গবেষণা পরিচালনা করেন। তিনি ১১ সপ্তাহ ধরে তাদের প্রতিদিন তাদের চাহিদার চেয়ে প্রায় ৮০০ ক্যালরি কম খেতে দিতেন। পরবর্তীতে দেখা যায় যাদের রক্তে ভিটামিন ডি এর লেভেল বেশি, তারা যাদের লেভেল কম তাদের তুলনায় অধিক দ্রুত ও বেশি মেদ মুক্ত হতে পেরেছেন। এই বেশির পরিমান ৭০ শতাংশের ও বেশি।

এর পর মেদ কমাতে ভিটামিন ডি এর উপযোগিতা নিয়ে অনেক গবেষণা হয়েছে। বেশিরভাগ গবেশনাতেই ভিটামিন ডি মেদ দ্রুত কমাতে ভিটামিন ডি কে বিশেষ উপযোগী হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে। তবে মনে রাখতে হবে, ভিটামিন ডি ওজন কমাতে একটি উৎকৃষ্ট নিয়ামক হলেও শুধু ভিটামিন ডি খেলে আপনার মেদ বা ওজন যে কমে যাবে তা কিন্তু নয়। ধরুন মেদ বা ওজন কমাতে আপনি ডায়েট করছেন বা  ফ্রী হ্যান্ড এক্সারসাইজ করছেন এবং সাথে ভিটামিন ডি সম্বলিত খাবার খাচ্ছেন, তাহলে আপনার মেদ বা ওজন স্বাভাবিক এর চেয়ে ৭০ শতাংশ পর্যন্ত বেশি ও দ্রুত কমবে।

এখন আসা যাক আমরা ভিটামিন ডি কিভাবে পেতে পারি সেই আলোচনায়। সাধারণত সকালের নম্র রোদ থেকে আমাদের শরীর ভিটামিন ডি উৎপাদন করে থাকে। তবে যান্ত্রিক জীবনে এই সকালের রোদ তা উপভোগ করার সৌভাগ্য আমাদের খুব কম মানুষের ই হয়। তাই আমাদের অনেককেই নির্ভর করতে হবে বিভিন্ন খাবার বা সম্পুরক খাদ্দের উপর। মাশরুম, বিভিন্ন সামুদ্রিক মাছ যেমন ম্যাকারেল, শারডিন, ডিম ইত্যাদি তে ভিটামিন ডি পাওয়া যায়। তবে সবচেয়ে বেশি পরিমানে ও কার্যকরী ভিটামিন ডি পাওয়া যায় কড লিভার আয়েল এ।

তাই আপনি যদি চান দ্রুত ও বেশি পরিমানে মেদ ও ওজন কমাতে, ডায়েট প্লান ও ফ্রী হ্যান্ড এক্সারসাইজ এর সাথে সাথে ভিটামিন ডি ও গ্রহন করুন। সবাই ভাল থাকবেন আশাকরি।

ফ্যাট কমানোর ফ্রি কন্সাল্টেশন পেতে কল করুনঃ
ফিজিও ফর হেল্‌থ এন্ড ওয়েলনেসঃ 01931405986

Leave a Comment