হার্টের বাইপাস অপারেশন

.{module Google 486*60}.

জটিল হৃদরোগ হলে বাইপাস অপারেশন করাতে হয় একথা এখন সবারই জানা। অনেকে আবার একে ওপেন হার্ট সার্জারি হিসেবে চেনে। যাই জানা থাকনা কেনো সব ধরনের জটিল হৃদ্ররোগে বাইপাস অপারেশন লাগে না তেমনি বাইপাস অপারেশন আর ওপেন হার্ট সার্জারি কথাটাও একই অপারেশন বুঝায় না। বাইপাস সার্জারি বলতে আমরা যা বুঝি তাকে মেডিকেলের ভাষায় বলে সি,এ,বি,জি (CABG- Coronary Artery Bypass Graft) সার্জারি। হার্টে ইশকেমিক হার্ট ডিজিজ অর্থাৎ এর ধমনীতে ব্লক হলে তা যদি স্টেন্ট / রিং পরিয়ে বা এনজিওপ্লাস্টি করে ভালো করার সম্ভাবনা না থাকে তবে সি,এ,বি,জি বা বাইপাস অপারেশন করাতে হয়। সি,এ,বি,জি সার্জারির ফলাফল স্টেন্ট পরানোর চেয়ে ভালো এই অর্থে যে একবার সি,এ,বি,জি করালে তা অনেকদিন দীর্ঘ হয় এবং এমন ধমনীতে সি,এ,বি,জি করা যায় যেখানে কখনো স্টেন্ট পরানো সম্ভব নয়।

সি,এ,বি,জি’র মুল সমস্যা হলো এজন্য রোগীর বুক কাটতে হয় এবং শরীরে বড় কাটা দাগ থাকে এবং এই অপারেশনটি পুরো অজ্ঞান করে করা হয় আর এতে ঝুকির সুযোগও বেশী। এই অপারেশনে রোগীর বুকের মাঝখানের হাড়টিকে ইলেক্ট্রিকাল করাত (saw) দিয়ে কাটা হয় এরপর হার্টের ধমনীর যেসব জায়গায় ব্লক আছে তার পরবর্তী স্থানে আরেকটি রক্তনালী লাগিয়ে দেয়া হয়। ফলে ব্লকের সামনে ও পিছন, ধমনীতে স্বাভাবিক হারে রক্তপ্রবাহ চলমান থাকে। এই নতুন রক্তনালীটি বুকের ভেতর থেকে নেয়া হয়। পায়ের মোটা শিরাটি দিয়েই এই নতুন রক্তনালী তৈরী করা হয়, হাতের ধমনীকেও এই কাজে ব্যাবহার করা হয়। এজন্য সি,এ,বি,জি অপারেশনের রোগীর পা এবং হাতে কাটা দাগ থেকে যায়।

বাইপাস অপারেশন হার্ট স্পন্দিত অবস্থায় বা বিটিং হার্টে (Beating heart) করা যায় একে অপক্যাব (OPCAB)সার্জারি বলে।তবে বর্তমানে উন্নত বিশ্বে হৃদস্পন্দন বন্ধ করেই (Arrested heart) বেশীর ভাগ সি,এ,বি,জি সার্জারি করা হয়, এই ধরনের অপারেশনকেই ওপেন হার্ট সার্জারি (Open heart surgery) বলা হয়। ওপেন হার্ট সার্জারিতে হার্টকে পুরোপুরি থামিয়ে দেয়া হয় এবং অপারেশনকালীন হার্ট-লাং মেশিন (Heart-Lung machine) হার্ট ও ফুসফুসের কাজ চালিয়ে নেয়।

.{module Google 486*60}.

বুকের মাঝখানে কাটা ছাড়াও বামপাশে ছোটো করে কেটেও সি,এ,বি,জে অপারেশন করা যায়। একে বলা হয় মিডক্যাব (MIDCAB) সার্জারি। Robot আবিস্কার হবার পর রোবোট দিয়েও সিএবিজি সার্জারি (Robotic surgery) করা হচ্ছে, এর ফলে এখন সার্জন একদেশে বসে অন্য দেশের রোগীর সিএবিজি সার্জারি করতে পারেন। রোবোটিক সার্জারি’তে রোগীর গায়ে খুবই সামান্য একটু কাটা দাগ থাকে এবং খুব দ্রুত রোগী বাড়ি চলে যেতে পারে।

সিএবিজি বা বাইপাস সার্জারি সেইঅর্থে এখন আর কোনো ভীতিকর সার্জারি নয়, এমনকি এখন পুরোপুরি অজ্ঞান না করেও এ অপারেশন করা যাচ্ছে। এর উত্তরোত্তর সাফল্যে মানুষের হৃদরোগে মৃত্যুর হার অনেক কমে গেছে।

Please Share:

Related posts

Leave a Comment