ঠান্ডা লাগার সমস্যা ও পরামর্শ

সমস্যাঃ আমার বয়স ১৮ বছর। গত বছর শীতের আগে বাড়ি যাওয়ার সময় গাড়িতে ঠান্ডা লাগায় আমার জ্বর-সর্দি ও কানে ব্যথা হয়। ওষুধ খাওয়ার পর জ্বর ছেড়ে যায় এবং কানের ব্যথার জন্য অ্যান্টিবায়োটিক খাই। খাওয়ার পর ব্যথা কমে যায়, কিন্তু কান দিয়ে পানি পড়াসহ কানে কম শুনতে থাকি। এ জন্য কানের ড্রপ ব্যবহার করি। ঢাকায় আসার পর কানে ব্যথা এবং পুনরায় কম শুনতে থাকি। পরে একজন চিকিৎসকের পরামর্শে ড্রপ ব্যবহার করলে কানে পুঁজ আসে। বেশি পরিশ্রম, ঠান্ডা ও গোসল করলে দুই কানে ব্যথা হয়। তা ছাড়া ধুলাবালি ও ঠান্ডা লাগলে নাক বন্ধ হয়। নাক প্রায়ই বন্ধ থাকে এবং নাকের ড্রপ ব্যবহার করলে সাময়িক ভালো হয়। দীর্ঘ দিন ধরে নাকে ঘ্রাণ পাই না। উল্লেখ্য, আমার বড় এক ভাই ও এক বোনের নাকেও একই সমস্যা। কী ব্যবস্থা নিলে আমি স্থায়ী ও সম্পূর্ণরূপে নাক ও কানের সমস্যা থেকে মুক্তি পাব, জানালে খুশি হব।

মো· মালেকুজ্জামান সজীব
ইন্দিরা রোড, তেজগাঁও, ঢাকা

পরামর্শঃ আপনি, আপনার এক ভাই ও এক বোন সম্ভবত নাকের অ্যালার্জিতে ভুগছেন। আপনাদের যেসব জিনিস যেমন-ধুলাবালি, ঠান্ডা, নির্দিষ্ট খাবার নাকে সমস্যা তৈরি করছে, তা থেকে দূরে থাকতে হবে। মাঝেমধ্যে অ্যান্টিহিসটামিন ও নাকের ড্রপ ব্যবহার করতে হবে। নাকে অ্যালার্জির জন্য আপনাদের নাকের ঘ্রাণ ওঠানামা করতে পারে। তবে অন্য অনেক কারণেও ঘ্রাণ কমে যেতে পারে, তাই নাক, কান ও গলা রোগ বিশেষজ্ঞ দিয়ে নাক পরীক্ষা করিয়ে উপদেশ
নেওয়াই ভালো হবে। আপনার কানের পর্দা ফুটো হয়ে আছে, সে জন্য কানে পুঁজ আসে। আপনার কানে টিম্পানোপ্লাস্টি অপারেশন করিয়ে নিলে কানের পর্দা ফুটো জোড়া লেগে যাবে, তখন পুঁজ আসবে না। কানের স্থায়ী সমাধান চাইলে অপারেশনই করাতে হবে, ওষুধে কাজ হবে না।

Please Share:

Related posts

Leave a Comment